রবিবার ১ বৈশাখ, ১৪৩১ ১৪ এপ্রিল, ২০২৪ রবিবার

অবিক্রিত চামড়ায় সয়লাব রাস্তা, উৎকট গন্ধ

অনলাইন ডেস্ক : ঢাকা ও আশপাশের জেলাগুলো থেকে কোরবানির পশুর চামড়া আসতে শুরু করেছে রাজধানীতে। রাজধানীর পোস্তার ট্যানারিতে এসব চামড়া আনা হচ্ছে। তবে চামড়া ন্যায্য দামে বিক্রি করতে না পেরে রাস্তাতেই ফেলে রেখে যাচ্ছেন বিক্রেতারা। ফলে পোস্তার আশেপাশে ছড়াচ্ছে উৎকট গন্ধ।

চকবাজার-লালবাগ এলাকায় পৌঁছালেই নাকে আসে পচা চামড়ার গন্ধ। সামনে এগুতে থাকলে এ গন্ধ আরও প্রকট হয়। গত বছরের তুলনায় এবার চামড়ার সরবরাহ বেশি হলেও ছাগলের চামড়া ও গরুর মাথার চামড়া বিক্রি করা যায়নি। ফলে দূর থেকে যারা বিক্রির উদ্দেশ্যে ছাগলের চামড়া বয়ে এনেছেন, তারা তা বিক্রি করতে না পেরে রাস্তায় ফেলে দিয়ে চলে গেছেন।

অন্যদিকে এ বছর পোস্তায় কোনও ব্যবসায়ী আসেননি গরুর মাথার চামড়া কেনার জন্য। এ ঘটনা এবারই প্রথম। ফলে বিক্রির জন্য মূল চামড়া থেকে মাথার চামড়া আলাদা করে রাখলেও তা বিক্রি করতে না পেরে রাস্তায় ফেলে রেখেছেন। ফলে পোস্তার রাস্তা এখন ছাগল ও গরুর মাথার চামড়ায় সয়লাব।

শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল থেকে রাজধানীর পোস্তায় সরজমিন ঘুরে দেখা গেছে, রাস্তা দিয়ে যানবাহন চলা দায়। হাঁটাও সম্ভব নয়। কারণ স্তূপ হওয়া পচা চামড়ার উপর দিয়ে যানবাহন চালানো সম্ভব নয়, অপরদিকে তা পেরিয়ে হাঁটাও দুষ্কর। স্থানীয়রা এর মধ্য দিয়েই চলাফেরা করছেন।

চট্টগ্রামের রাস্তায় পঁচা চামড়ার স্তুপ

ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত বছরের তুলনায় এ বছর চামড়ার দাম কিছুটা বেশি। প্রতি পিস চামড়ার দাম গত বছরের তুলনায় ১০০ থেকে ১৫০ টাকা বেশি দিয়ে কিনেছেন তারা। এ বছর সর্বোচ্চ ৭ শ এবং সর্বনিম্ন ১০০ টাকা দিয়ে ব্যবসায়ীরা গরুর চামড়া কিনেছেন। এর উপর এই চামড়ায় মাখাচ্ছেন লবণ। এতে আরও যুক্ত হচ্ছে ৩ শ টাকা। এর পরই এগুলো পোস্তার আড়তে সংরক্ষিত করে রাখা হবে কয়েক দিন বা মাসখানেক। এর পরেই তা ফুট হিসেবে ট্যানারি মালিকদের কাছে বিক্রি করবেন তারা।

অবিক্রিত চামড়ায় সয়লাব রাস্তা, উৎকট গন্ধ

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর করোনার কারণে বাংলাদেশে এক কোটির কিছু বেশি পশু কোরবানি হয়েছে, তবে তার আগের বছর কোরবানির সময় এক কোটি ৬ লাখের বেশি পশু কোরবানি হয়।

ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের তথ্যানুযায়ী, বছরে বাংলাদেশে প্রায় ২২ কোটি বর্গফুট চামড়া পাওয়া যায়। এর মধ্যে ৬৪ দশমিক ৮৩ শতাংশ গরুর চামড়া, ৩১ দশমিক ৮২ শতাংশ ছাগলের, ২ দশমিক ২৫ শতাংশ মহিষের এবং ১ দশমিক ২ শতাংশ ভেড়ার চামড়া। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ঢাকায় এ বছর লবণযুক্ত গরুর চামড়ার দাম প্রতি বর্গফুট ৪০ থেকে ৪৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। ঢাকার বাইরে ৩৩ থেকে ৩৭ টাকা দর নির্ধারণ করা হয়েছে।

বিষেরবাঁশী.কম/ডেস্ক/ব্রিজ

Categories: জাতীয়

Leave A Reply

Your email address will not be published.