বুধবার ৮ ফাল্গুন, ১৪৩০ ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ বুধবার

হিন্দুত্ববাদী সংগঠক ও অনুসারীদের সহিংসতার হুমকি : আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হস্তক্ষেপ কামনা।

বিষেরবাঁশী ডেস্ক: হিন্দু নারীদের সাংবিধানিক অধিকারের আর্জী জানিয়ে হাইকোর্টে রীট পিটিশনা করায় হিন্দুত্ববাদী সাম্প্রদায়িক কতিপয় নেতার হুমকি ও উস্কানিমূলক তৎপরতার মুখে আবেদনকারী ও সংহতি প্রকাশকারীদের মধ্যে ভীতি আতঙ্ক বিরাজ করছে।

উল্লেখ্য, হিন্দু আইনে নারীদের সম্পত্তির অধিকার ফিরিয়ে দিতে হাইকোর্টে রীটের প্রক্ষিতে গত ১৪ মে ২০২৩ ‘হিন্দু নারীর অধিকার সুরক্ষা নিয়ে আদালত রুল দিয়েছেন। বহুদিন ধরে এ দাবির পক্ষে ‘বাংলাদেশ হিন্দু আইন সংস্কার পরিষদ’ সামাজিক আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে।আন্দোলনের সাথে সংহতি প্রকাশ করে দেশের খ্যাতনামা ছয়টি মানবাধিকার সংগঠন,একজন আইনজীবী ও ভুক্তভোগী দুই নারী ইতোপূর্বে গত ৩ মে হাইকোর্টে রীটটি করেন।

রীট আবেদনকারীদের মধ্যে আইন ও সালিশ কেন্দ্র(আসক) বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট), নারীপক্ষ, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন,অভিযান এবং আইনজীবী উজ্জ্বল পালসহ রয়েছেন সিনিয়র আরো আইনজীবী। আদালতে রীট করায় হিন্দু মৌলবাদী কয়েকটি সংগঠনের উশৃংখল নেতাকর্মীরা রীটকারী ও বাংলাদেশ হিন্দু আইন সংস্কার পরিষদের নেতাকর্মীদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ২৬ মে শুক্রবার সকাল ১০ টায় ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে জুতা ও ঝারু নিয়ে নামার কর্মসূচী ঘোষণা দিয়েছে।

উল্লেখ্য, একই সময়ে ‘বাংলাদেশ হিন্দু আইন সংস্কার পরিষদ’ এর উদ্যোগে জাতীয় প্রেস ক্লাবে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। উগ্রবাদীরা সহিংসতার হুমকি দিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হুমকি ধামকি দিয়ে সংঘবদ্ধভাবে ভীতি ছড়াচ্ছে।এমনকি আইন পরিবর্তনের সংগে সংশ্লিষ্ট নারীপুরুষদের ব্যক্তিগত ম্যাসেঞ্জরেও ছড়িয়ে ভীতিকর পরিবেশের পায়তারায় লিপ্ত। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ হিন্দু আইন সংস্কার পরিষদের উদ্যোগে অনুষ্ঠেয় সাংবাদিক সম্মেলন হুমকির মুখে পতিত হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়।

May be an image of text

এ অবস্থায় ২৬ মে সংবাদ সম্মেলনের পরিবেশ স্বাভাবিক রাখতে ‘বাংলাদেশ হিন্দু আইন সংস্কার পরিষদের পক্ষ থেকে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে। @ উগ্রবাদীদের হুমকির পোষ্টে হুমকি দেয়া হচ্ছে যে, ২৬ মে শুক্রবার ঝাঁটা,জুতাসহ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ কর্মসূচী পালন করা হবে। হুমকিদাতাদের অভিযোগ,হিন্দু মেয়েদের নিয়ে এনজিওরা ব্যবসা করে! তাই এনজিওদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে তারা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অবস্থান নেবে।তাদের আরো দাবি, এনজিওদের নিবন্ধন বাতিল ও এনজিওর বিরুদ্ধে মানবতা বিরোধী অপরাধ ট্রাইবুনালে বিচার করতে হবে। দাবি মানা না হলে সহিংসতা করবে।

সংবাদদাতা/হৃদয়

Categories: আইন-আদালত,ধর্ম ও নৈতিকতা,সারাদেশ

Leave A Reply

Your email address will not be published.